আমি এহোন হাতনেই থাহি!যশোরের আঞ্চলিক কবিতা

লেখা অলোক বসু বাপী
আমি এহোন হাতনেই থাহি!
উগের বাপ মইরে যাবার পরতে
আমার জাগা হইয়েছে এহোন হাতনেই!
তিন তিনডে ঘর থাকতিউ ছাবাল বউ মিলে
আমার থাহার জাগা করে দেলে হাতনেই,
আমি ঘরে থাহলি ঘর নুংরা হইয়ে যাবে
তাই আমি এহোন হাতনেই থাহি।
একসুমায় সোগ্গুলি কতো ছাবাল হলি মার যত্তোন এরে
আর মাইয়ে হলি বাপেরে যত্তোন এরে,
এহোন দেকতিছ সব মিছে কতা।
ওর বাপ বাঁইচে থাকতি ভুঁই নিহে নিয়ার জন্যি
মাইয়েডা পিরায় পিরায় আইসতো,
তহনও মানুষটার কদোর ছিলো
ভুঁই নিহে নেলে আর বাপের খোঁজ নেলেনা।
আর আমি ছাবালের ওহেনি থাহি,
আমার জাগা হইয়েছে হাতনেই!
ছোট বিলায় উরা ব্যারোমি এরলি কতাম,
আমি কিন্তুক মইরে যাবানে
তুগে কিন্তুক আর মা ডাকতি হবেন না কলাম।
শুনেই মন্তর ছাবাল মাইয়ে ছুটে আসতো,
ছাবাল এক হাত ধরতো আর মাইয়ে এক হাত ধরতো
ছাবাল কতো আমার মা আর মাইয়ে কতো আমার মা
দুডোই মিলে কি টানাটানি না এরতো।
তহোন আমি উগের মা ছিলাম!
তহোন বাপ মা উগের পুরাণ ছিলো।
এরির মদ্যি ফস্ করে কহোন বড় হইয়ে উটলো
ছবাল মাইয়ের বিয়ে দিলাম
যট্টুক যা ছিলো জমি যাতি ছাবাল মাইয়েরে সুমান
ভাগে ভাগ এরে দিলাম,
এহোন ছাবাল কয় মা তোর,ওদিরি মাইয়ে কয় মা তোর
এহোন আমার জাগা হইয়েছে হাতনেই!
ছাবাল মাইয়ে যহোন ছোট ছিল উগের বাপ
হাটেরতে মিষ্টি মিঠেই আইনে দিলি,
আমাগে না খাবায়ে উরা মুহিউ তুলতো না,
আগে বাপ খাবে,মা খাবে তারির পর উরা গালে তুলতো
হাতে তুলে না খাবালি ছাবাল মাইয়ের প্যাট ভরতো না।
কতোদিন নিজি না খাইয়ে ছাবাল মাইয়েরে খাবাইছি,
শ্যাষে পানি খাইয়ে শুইয়ে ফড়িছি।
তহনো ভাবতাম বড় হলি উরাই তো আমাগে খাতি দেবে
তহোন না হয় প্যাট পুইরে খাবো…
এহোন আমি না খালি নালু খায়না
ঘেউ ঘেউ এরে ডাকতি থাহে,
ওর ঘেউ ঘেউ ডাক যাইগের কানে যায়না
তারাই আমার ছাবাল মাইয়ে বউ
এহোন নালু আর আমি হাতনেই থাহি,
আমাগে জাগা হইয়েছে হাতনেই!
””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””
রচনাকালঃ২৮ আগস্ট ২০২০ খ্রি:
Views: 128